আমরা অনেকেই রাস্পবেরি পাই (Raspberry Pi) সম্পর্কে জানি। রাস্পবেরি পাই নিয়ে আলোচনা করতে হলে সবার আগে সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার নিয়ে কিছু বলতে হবে।

সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার (Single Board Computer - SBC) আসলে খুবই সহজ একটা ধারণা, নাম থেকেই অনেকটা আঁচ করে ফেলা যাচ্ছে! :) শুধুমাত্র একটি সার্কিট বোর্ড এর মধ্যেই সম্পূর্ণ একটি কম্পিউটার বসানো গেলে তাকেই আমরা সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার বা সংক্ষেপে SBC বলে থাকি। সোজা কথায় - সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারে সাধারণ কম্পিউটারের মোটামোটি সব সুযোগ-সুবিধাই থাকবে, কিন্তু সবকিছু একটিমাত্র বোর্ডে বসানো থাকবে। সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারের আকারের কোনো নির্দিষ্ট সীমাবদ্ধতা না থাকলেও বর্তমানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারগুলো মিনি সাইজের হয়।

রাস্পবেরি পাই ৩ মডেল বি

আমাদের আলোচ্য বস্তু রাস্পবেরি পাই-ও একটি সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার সিরিজ। যুক্তরাজ্যের অলাভজনক প্রতিষ্ঠান রাস্পবেরি পাই ফাউন্ডেশন এই কম্পিউটার সিরিজটা নিয়ন্ত্রণ করে। প্রতিষ্ঠানটি রাস্পবেরি পাই এর অনেকগুলো ভার্সন বা মডেল বের করেছে, তাদের সর্বশেষ মডেল **রাস্পবেরি পাই ৩ মডেল বি। দাম $35 টাকার হিসাবে 2820 টাকার মতন। অবশ্য ট্যাক্স, শিপিং আর রিসেলারের লাভ যোগ করলে বাংলাদেশে ৩৫০০ টাকার নিচে পাবেন না কোথাও।

রাস্পবেরি পাই বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার। বর্তমানে আরো অনেক প্রতিষ্ঠানই সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটার বানায়, কিন্তু সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারের বিপ্লব শুরু হয়েছে ২০১২ সালে মূলত এই রাস্পবেরি পাই এর হাত ধরেই। অন্যান্য সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারের সাথে রাস্পবেরি পাই এর বিশাল দর্শনগত পার্থক্য রয়েছে। রাস্পবেরি পাই ফাউন্ডেশন অর্থগত লাভের জন্য রাস্পবেরি পাই বানায় না, ইন ফ্যাক্ট $35 এর মাঝে তাদের কোনো লাভ হয় না বললেই চলে। স্কুল কলেজে এবং উন্নয়ণশীল দেশে কম্পিউটার শিক্ষা সহজলভ্য করতেই 35 ডলারের সম্পূর্ণ কম্পিউটার এই রাস্পবেরি পাই।

রাস্পবেরি পাই দিয়ে কি করা যায়?

রাস্পবেরি পাই ৩ কে একটি পূর্নাঙ্গ মিনি কম্পিউটার হিসেবে ব্যবহার করা যাবে!

রাস্পবেরি পাই ৩ এর আকার মোটামোটি একটা ক্রেডিট কার্ড এর সমান! আকারে এত ছোট হলেও এর প্রসেসিং ক্ষমতা মোটামোটি মানের একটি ডেস্কটপ কম্পিউটারের কাছাকাছি। আগেই বলেছি সিঙ্গেল বোর্ড কম্পিউটারে সাধারণ কম্পিউটারের মোটামোটি সব সুযোগ-সুবিধাই থাকে, রাস্পবেরি পাই ৩ এ ও এর ব্যতিক্রম দেখা যায় না। একটি সাধারণ কম্পিউটারে যা যা করা যায়, রাস্পবেরি পাই ৩ এও তার প্রায় সবকিছুই করা সম্ভব।

কম্পিউটারে মনিটর লাগাতে চান? সম্ভব। পেনড্রাইভ? কিবোর্ড? মাউস? সম্ভব! কম্পিউটারে গান শুনতে চান, ইউটিউব চালাতে চান, ফেসবুকিং করতে চান? তাও সম্ভব। সময় কাটছে না, গেইমিং করতে চান? সম্ভব। সবশেষে রাস্পবেরি পাই এর সম্ভবত সবচেয়ে বড় সুবিধা যেটি - কম্পিউটার হিসেবে ব্যবহার করতে করতে বিরক্ত, কলেজের বিজ্ঞান মেলার জন্য রিমোট কন্ট্রোল কোয়াডকপ্টার বানাতে চান? রাস্পবেরি পাই দ্বারা সেটাও সম্ভব!

কম্পিউটার কিভাবে কাজ করে কাছ থেকে তা শেখার জন্য রাস্পবেরি পাই এর তুলনা হয় না। রাস্পবেরি পাই মূলত লিনাক্স কার্ণেল বিশিষ্ট অপারেটিং সিস্টেমে চলে। আমরা সবাই জানি কোডিং শেখার জন্য লিনাক্সের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই! :)

সবচেয়ে বড় সুবিধা হল রাস্পবেরি পাই এর দাম। মাত্র ২৮২০ টাকায় আপনি একটা সম্পূর্ণ কম্পিউটার পেয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের মতন গরীব দেশে এটা অনেক বড় একটি ব্যাপার। এদেশের ১২.৯ শতাংশ মানুষ এখনো দারিদ্রসীমার নিচে মানবেতর জীবনযাপন করে। শহরে এবং গ্রামাঞ্চলে অনেক পরিবার অর্থাভাবে সন্তানদের কম্পিউটার কিনে দিতে পারেন না। সরকারের লক্ষ্য ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে রাস্পবেরি পাই এর মতন স্বল্পমূল্যের সহজলভ্য কম্পিউটার ভূমিকা রাখতে পারে।

কি আছে রাস্পবেরি পাই ৩ এ?

চলুন দেখা যাক 2820 টাকার এই বাচ্চা কম্পিউটারে কি কি থাকছেঃ

রাস্পবেরি পাই ৩ এ যা যা আছে

১। প্রসেসরঃ যেকোনো কম্পিউটারেরই সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ অংশ এর প্রসেসর। রাস্পবেরি পাই ৩ এ থাকছে ব্রডকম এর তৈরী BCM2837 মডেলের কোয়াড কোর (৪ টা ফিজিক্যাল কোর) প্রসেসর। প্রসেসরের সবগুলো কোরই ১.২ গিগাহার্জ এ ক্লক করা। প্রসেসরটি ৬৪ বিট এর হওয়ায় কোনো compatibility layer ছাড়াই natively ৬৪ বিট প্রোগ্রাম চালনা করা যাবে। :)

প্রসেসরটি ARMv8 আর্কিটেকচারে তৈরি। রাস্পবেরি পাই ৩ এর প্রসেসর অত্যন্ত শক্তিশালী, রাস্পবেরি পাই ২ এর তুলনায় এর ক্ষমতা প্রায় দ্বিগুণ। আমি নিজেই অবাক হয়ে গিয়েছিলাম এর প্রসেসিং ক্ষমতা দেখে।

**২। র‍্যামঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ ১ গিগাবাইট র‍্যাম রয়েছে। উল্লেখ্য, রাস্পবেরি পাই ৩ এ গ্রাফিক্স এর জন্য আলাদা মেমোরি নেই। মূল মেমোরির নির্দিষ্ট একটা অংশ (বাড়ানো কমানো যায়) বরাদ্ধ থাকে গ্রাফিক্স চিপ এর জন্য।

৩। ইউএসবি (USB): ফুল সাইজ ইউএসবি পোর্ট ছাড়া কোনো কম্পিউটারই সম্পূর্ণ না। রাস্পবেরি পাই ৩ এ রয়েছে ৪ টি ফুল সাইজ USB 2.1 পোর্ট। ইউএসবি পোর্টগুলো ফুল সাইজ হওয়ায় খুব সহজেই আপনার ইচ্ছানুযায়ী USB Drive, Keyboard, Mouse এমনকি Portable Hard Drive ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারবেন।

৪। মাইক্রোএসডি (MicroSD) কার্ড স্লটঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ থাকছে MicroSD মেমোরি ব্যবহারের জন্য MicroSD Card Slot. আপনি না চাইলেও একটা মেমোরি কার্ড ব্যবহার করতে হবে, কারণ রাস্পবেরি পাই এর অপারেটিং সিস্টেম এবং BIOS মেমোরি কার্ড থেকেই লোড নেয়।

**৫। HDMI পোর্টঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ রয়েছে মনিটর এবং টিভি কানেক্ট করার জন্য একটি ফুল সাইজ HDMI পোর্ট। গোল্ড প্লেটেড না হলেও পোর্টটি অত্যন্ত উন্নতমানের।

৬। ব্লুটুথ এবং ওয়াইফাইঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ নতুন সুবিধাগুলোর একটি হল বিল্টইন ব্লুটুথ এবং ওয়াইফাই। ব্লুটুথ এর ভার্সন 4.1, যা লেটেস্টই বলা চলে। ওয়াইফাই এর এন্টেনা অনবোর্ড (onboard)। অর্থাৎ অতিরিক্ত কোনো এন্টেনা নেই, বোর্ডেই সোল্ডার করা এন্টেনা। অনবোর্ড ওয়াইফাই থেকে আমি তেমন ভালো পারফরম্যান্স আশা করিনি, চমকপ্রদভাবে এটি অনেক দূর্বল ওয়াইফাই সিগন্যালও গ্রহণ করতে পারে।

৭। ল্যানঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ তারযুক্ত নেটওয়ার্কে কানেক্ট হওয়ার জন্য একটি 10/100 ল্যান পোর্ট রয়েছে। অনেক নেটওয়ার্কিং-প্রেমী হয়ত আশাহত গিগাবিট (Gigabit) ল্যান পোর্টের অনুপস্থিতিতে, তবে আমার মতে 35 ডলারের একটা SBC তে গিগাবিট আশা না করাই ভালো। তাছাড়া ল্যান পোর্টটা যথেষ্ট ভালো। আমি নিজে যাচাই করে দেখিনি, তবে যতদুর শুনেছি এটা ক্রস কানেকশন সাপোর্ট করে।

৮। অডিও + এনালগ (composite) ভিডিও পোর্টঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এ স্পিকার এবং অন্যান্য অডিও যন্ত্রাংশ কানেক্ট করার জন্য রয়েছে একটি 3.5mm অডিও এবং কম্পোজিট ভিডিও পোর্ট। কম্পোজিট ভিডিও পোর্ট থাকায় এনালগ টিভি এবং মনিটর কানেক্ট করা যাবে।

অনেকের কাছে হয়ত এই কম্বাইনড পোর্ট এর ধারণাটা নতুন, আগামী কোনো পর্বে আরো আলোচনা করব এই কম্বিনেশনের সুবিধা নিয়ে।

৯। DSI Display Port, CSI Camera Port: রাস্পবেরি পাই ৩ এর DSI পোর্টের মাধ্যমে LCD Display এবং CSI পোর্টের মাধ্যমে Camera কানেক্ট করা যায়।

১০। 40 pin GPIO: রাস্পবেরি পাই এর সবচেয়ে বড় কয়েকটা সুবিধার মাঝে একটি হল এই 40 pin GPIO. GPIO পিনের মাধ্যমে বিভিন্ন মডিউলের সাথে রাস্পবেরি পাইকে সরাসরি কানেক্ট করা সম্ভব। এছাড়াও বিভিন্ন প্রজেক্টে প্রোটোটাইপিং বোর্ড হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

১১। MicroUSB পাওয়ার পোর্টঃ রাস্পবেরি পাই ৩ এর পাওয়ার সাপ্লাই এর জন্য রয়েছে একটি MicroUSB পোর্ট। বর্তমানে বেশিরভাগ স্মার্টফোনে MicroUSB ইন্টারফেস ব্যবহার করা হলেও রাস্পবেরি পাই ৩ এ তুলনামূলক বেশি পাওয়ার প্রয়োজন হয়। রাস্পবেরি পাই এর অফিসিয়াল ডাটাশিট অনুযায়ী 2.5 amp এর পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা উচিত।

আগামী পর্বে আমরা দেখব কিভাবে রাস্পবেরি পাই সেটাপ করা যায় এবং ফুল সাইজের মনিটর কানেক্ট করে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটারের মতন ব্যবহার করা যায়। সাথেই থাকুন।